আল্লাহর পথে উপদেশকারীর ব্যর্থতার কারণ: হাসান আল-বাসরি

0
132

হাসান আল-বাসরি রহ. বলেন,
“মানুষকে কাজ দ্বারা সংশোধন করো, কেবল কথা দ্বারা নয়।”
[কিতাবুয-যুহুদ, ২২২]

মাঝে মাঝে কাছের মানুষগুলো আমাদের নসিহত গ্রহণ করে না। “বিষয়টা দিবালোকের ন্যায় পরিষ্কার হওয়ার পরও কেন যে সে মানছে না?!” এর কারণ খুঁজে পাই না…

আসলে এর কারণ একটাই, আমাদের আমল। তারা আমাদের কথা দ্বারা যে বার্তা পায়, আমাদের কর্ম দ্বারা এর বিপরীত বার্তা পায়। ফলে তারা গ্রহণ করে না, সংশোধন হতে চায় না।

আর আল্লাহ তা’আলাও আমাদের কথায় তাছির(প্রভাব) দেন না। ফলে আমাদের জ্ঞান গভীর কথাগুলো তাদের অন্তর ছেদ করে যায় না।

ম্যাসেজটা হচ্ছে প্রোডাক্ট, আর আমরা হচ্ছি ডেলিভারি ম্যান। এখন ডেলিভারি ম্যান যদি রাস্তা না চিনে কিংবা প্রস্তুতি না নিয়ে বের হয়, তাহলে সে ডেলিভারি করতে ব্যর্থ হবে; এটাই স্বাভাবিক।

এরকম পথ নির্দেশক ও উপদেশ দাতাগণের প্রতি মহান রবের বার্তা হলো:

أَتَأْمُرُونَ النَّاسَ بِالْبِرِّ وَتَنسَوْنَ أَنفُسَكُمْ وَأَنتُمْ تَتْلُونَ الْكِتَابَ أَفَلَا تَعْقِلُونَ

তোমরা কি মানুষকে সৎকর্মের নির্দেশ দাও এবং নিজেরা নিজেদেরকে ভূলে যাও, অথচ তোমরা কিতাব পাঠ কর? তবুও কি তোমরা চিন্তা কর না?
( ২:৪৪)

এবং ঠিক তার পরের আয়াতে বলা হয়েছে,

وَاسْتَعِينُوا بِالصَّبْرِ وَالصَّلَاةِ وَإِنَّهَا لَكَبِيرَةٌ إِلَّا عَلَى الْخَاشِعِينَ

ধৈর্য্যর সাথে সাহায্য প্রার্থনা কর নামাযের মাধ্যমে। অবশ্য তা যথেষ্ট কঠিন। কিন্তু সে সমস্ত বিনয়ী লোকদের পক্ষেই তা সম্ভব।

নিশ্চিত সফলতা অর্জণে নিজেকে গুরুত্ব দেন অন্যের চেয়ে ও অধিক বেশি। কেননা যদি আপনি অন্যকে সৎ কাজে আহবান করতে গিয়ে নিজের ইখলাস ও আমলের প্রতি যত্নহীন হয়ে উঠেন তাহলে হয়তো আপনিও ফিতনায় পড়ে বিষণ লজ্জ্বা আর হতাশা নিয়ে রবের সামনে দাঁড়াতে হবে। মুমীনরা কি কখনো এরকম দু:সাহস করতে পারে–?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here